বোরহানউদ্দিনে মরহুম বশির আহমেদ মিয়ার ১৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

0
36

এইচ.এম.এরশাদ,বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ মরহুম বশির আহম্মদ মিয়া একজন সত্যিকার জনদরদী মানুষ বটে। তার সৎ কাজের জন্য আজও লোকমুখে জনগনের নেতা হয়ে আছেন। ভোলা জেলার বোরহানউদ্দিন পৌরসভার প্রথম পৌর মেয়র ছিলেন। একটানা বড়মানিকা ইউনিয়ন পরিষদের ৩৮ বছর সফল চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্ব পালন করেন। মৃত্যু কালিন সময় পর্যন্ত বোরহানউদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন।

তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর সংগঠক ছিলেন,ধর্ম বর্ণ,গোষ্ঠী,ধনী,গরীব সকলের প্রিয় মূখ ছিলেন। সকলের কাছে গ্রহনযোগ্য ব্যক্তি হিসাবেই বেশ পরিচিতি ছিল মরহুম বশির আহমেদ মিয়ার। বর্তমানে তার মতো নেতার খুবই অভাব। আমরা তার সাথে আওয়ামী লীগর রাজনীতি কর্মী হিসেবে অনেক কাজ করেছি,১৯ বছর আগে এই দিনে ১৩ই আগস্ট দিল্লীর স্কট হসপিটালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি আমার কাছে ছিলেন পিতৃতুল্য। মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি তুমি মহান মানুষটিকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করো। সারাজীবন তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারন করে জননেতা তোফায়েল আহমেদ এর সাথে ছিলেন। তিনি কোনদিন নীতি বা আদর্শচ্যুত হননি।আজকে এই দিনে তাঁকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি। বৃহস্পতিবার বিকালে মরহুম বশির আহমেদ মিয়ার ১৯ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া শেষে কবর জিয়ারত করে প্রধান অতিথি ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আলী আজম মুকুল এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মরহুম বশির আহমেদ মিয়ার বড় ছেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ জসিম উদ্দিন হায়দার,বোরহানউদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র রফিকুল ইসলাম,বোরহানউদ্দিন উপজেলা নির্বাহি অফিসার সাইফুর রহমান,মরহুম বশির আহমেদ মিয়ার ছোট ছেলে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ রাসেল আহমেদ মিয়া,মেজো ছেলে বড় মানিকা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ জহির উদ্দিন বাবর,বোরহানউদ্দিন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আলহাজ্ব আহমদ উল্লাহ, বোরহানউদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দিন ইসলাম রুবেলসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা।

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন