বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ল্যাবরেটরী মেডিসিন বিভাগ’র কার্যক্রম সচল

0
11
ছবিঃ বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের।

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ দীর্ঘদিন পর ফের সক্রিয় হলো ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ল্যাবরেটরী মেডিসিন বিভাগটি। রিয়েজেন্টের অভাব,হাসপাতালের সামনে ডাক্তারদের অংশীদারত্বের ভিক্তিতে গড়ে উঠা ডায়াগনস্টিক সেন্টার,কমিশন বানিজ্যের কারণে এ বিভাগটির কার্যক্রম দীর্ঘদিন নিস্ক্রিয় ছিল। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবী রিয়েজেন্টের অভাবে পুরোদমে কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি।

বোরহানউদ্দিন হাসপাতালের ল্যাব সহকারী আবু তাহের জানান,আগষ্টের শেষ দিকে আমরা অনেক রিয়েজেন্ট পাই। ১ সেপ্টেম্বর থেকে পুরোদমে ২৩ আইটেম প্যাথলজিক্যাল টেস্ট সরকারি নির্ধারিত ফি নিয়ে করানো হচ্ছে।নির্ধারিত ফি হাসপাতালের দৃশ্যমান স্থানে সাঁটানো আছে। প্রতিদিনের রিপোর্ট ওই দিনই হাসপাতাল চলাকালীন সময়ের মধ্যে ডেলিভারি দেওয়া হয়।

তিনি বলেন,সেপ্টেম্বর মাসের ৫ দিনে ১৫ টি টেস্ট ল্যাবে আসে। মেডিকেল অফিসার ডাক্তার মশিউর রহমান সাদী বলেন,বর্তমান উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাক্তার তপতী চৌধুরী ৬ মার্চ যোগদানের পর আমরা সিদ্ধান্ত নেই কিভাবে ল্যাবটিকে পুরোদমে সচল করা যায়। তিনি আরো বলেন,বেশ কিছুদিন রিয়েজেন্ট না থাকায় ল্যাবটিতে সীমিত পরিসরে পরীক্ষা হতো। এখন সেই সমস্যা নেই। পুরোদমে কাজ চলছে। প্রতিদিন গড়ে বর্হিবিভাগে প্রায় ৩০০ জন রোগী আসে। এখানে টেকনোলজিস্টের প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা,রিপোর্টের নির্ভুলতা ও সাশ্রয়ী মূল্যে রোগীরা সেবা নিতে পারেন। তবে এখানে জনবল সংকট আছে বলে তিনি দাবী করেন।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানান,বোরহানউদ্দিনে ৫/৬ টিকে ডায়াগনস্টিক সেন্টার আছে।যেখানে ব্লাডের গ্রুপ নির্ণয়, ব্লাড সুগার নির্ণয়ের ক্ষেত্রেও ত্রুটি আছে।ডেঙ্গুর সময়ে পজিটিভ রিপোর্টে দিছে।অথচ ঢাকা গিয়ে টেস্ট করানোর পর নেগেটিভ রিপোর্ট আসছে। প্রতিষ্ঠানিক দক্ষতা নেই এমন লোককে স্বল্প বেতন দিয়ে টেকনোলজিস্ট হিসেবে নিয়োগ দেন ডায়াগনস্টিক সেন্টারের কতিপয় মালিক। তবে হাসপাতালে টেকনোলজিস্টের অভাবে এক্সরে মেশিনটি ২ যুগের অধিক কাল গৃহবন্দী অবস্থায় রয়েছে।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডাক্তার তপতী চৌধুরী বলেন,ডায়াগনস্টিক সেন্টারের চেয়ে অর্ধেক ফিতে ক্ষেত্র বিশেষ আরো কম মূল্যে অধিক নির্ভুল টেস্ট হাসপাতালে করানো হয়। তিনি সকলকে সাশ্রয়ী মূল্যে হাসপাতালের ল্যাবরেটরী মেডিসিন বিভাগে পরীক্ষা করানোর আহবান জানান।

আপনার মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন
আপনার নাম লিখুন